Bayanno Tv
বৃহস্পতিবার, ১৫ এপ্রিল ২০২১, ২ বৈশাখ ১৪২৮
×

চীনে উইঘুর নিপীড়নকে গণহত্যার স্বীকৃতি দিল নেদারল্যান্ডস

  বায়ান্ন অনলাইন ডেস্ক ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১৭:২৫

চীনে উইঘুর নিপীড়নকে গণহত্যার স্বীকৃতি দিল নেদারল্যান্ডস

চীনের জিনজিয়াং প্রদেশে উইঘুর মুসলমানদের উপর চালানো নিপীড়নকে গণহত্যার স্বীকৃতি দিয়েছে নেদারল্যান্ডসের আইনসভা। বৃহস্পতিবার ইউরোপীয় দেশ হিসেবে প্রথম এই প্রস্তাব পাস করে দেশটি। গণহত্যার জন্য চীন সরকারকে দায়ী করা হয়েছে।  

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা জানায়, বিশ্বে তৃতীয় দেশ হিসেবে উইঘুর নিপীড়নকে গণহত্যার স্বীকৃতি দিয়েছে নেদারল্যান্ডস। এর আগে যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডা উইঘুর মুসলিমদের প্রতি চীনা আচরণকে গণহত্যা বলে স্বীকৃতি দেয়।

অবশ্য এই প্রস্তাবের বিপক্ষে ভোট দেয় নেদারল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী মার্ক রুটের রক্ষণশীল ভিভিডি পার্টি। প্রস্তাব পাসের পর দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী স্টেফ ব্লক বলেন, যেহেতু জাতিসংঘ বা আন্তর্জাতিক কোনো আদালত এই পরিস্থিতিকে গণহত্যার সঙ্গে তুলনা করেনি তাই গণহত্যা শব্দটি ব্যবহার করতে চায়নি সরকার। তবে উইঘুর পরিস্থিতি উদ্বেগজনক জানিয়ে ব্লক বলেন, অন্য দেশগুলোর সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে কাজ করবে নেদারল্যান্ডস।

নেদারল্যান্ডসে প্রস্তাবে উইঘুর সংখ্যালঘুদের লক্ষ্য করে গণহত্যা চালানোর কথা বলা হলেও এতে চীন সরকারের দায়বদ্ধতার কথা সরাসরি উল্লেখ করা হয়নি।

আলাদাভাবে গণহত্যা বন্ধে চীনের ওপর চাপ প্রয়োগে ২০২২-এর শীতকালীন অলিম্পিকের আয়োজন বেইজিং থেকে সরিয়ে নেওয়ার জন্য আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটিতে লবিংয়ের সুপারিশ করেন প্রস্তাব প্রস্তুতকারী পার্লামেন্ট সদস্য সয়ের্ড সয়ের্ডসমা।

মানবাধিকার সংস্থাগুলোর দাবি অনুযায়ী, জিনজিয়াংয়ের বন্দি শিবিরগুলোতে অন্তত ১০ লাখ মুসলমানকে আটকে রাখা হয়েছে। সেখানে তাদের দিয়ে জোর করে কাজ করানো, জন্ম নিয়ন্ত্রণে বাধ্য করা, যৌন নিপীড়নসহ বিভিন্ন ধরণের অত্যাচারের শিকার হতে হচ্ছে।  

তবে মানবাধিকার লঙ্ঘনের সব অভিযোগ অস্বীকার করেছে চীন। দেশটির পক্ষ থেকে বলা হয়, উইঘুর মুসলমানদের বিভিন্ন কারিগরি প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে। যা চরমপন্থা নিয়ন্ত্রণের জন্য প্রয়োজনীয়।

জিনজিয়াংয়ে গণহত্যার বিষয়টি সম্পূর্ণ মিথ্যা দাবি করে চীনের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে হস্তক্ষেপের তীব্র সমালোচনা করেছে হেগে অবস্থিত চীনা দূতাবাস।

এর আগে গেল সোমবার উইঘুর মুসলিমদের প্রতি নিপীড়নকে গণহত্যা হিসেবে স্বীকৃতি দেয় কানাডা। দেশটির পার্লামেন্ট হাউস অফ কমন্সে ২৬৬ ভোটে পাস হয় প্রস্তাবটি। এতে বিরোধী দলের সবাই এবং ক্ষমতাসীন লিবারেল পার্টির একটি অংশ ভোট দেয়। অবশ্য ভোটদানে বিরত ছিলেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো ও তার মন্ত্রিসভার বেশিরভাগ সদস্য। এ পদক্ষেপে যুক্তরাষ্ট্রের পর দ্বিতীয় দেশ হিসেবে উইঘুরদের প্রতি চীনা আচরণকে গণহত্যা বলে স্বীকৃতি দেয় কানাডা।

 

এসএন

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র

প্রধান সম্পাদকঃ সৈয়দ আশিক রহমান
বেঙ্গল টেলিভিশন লিমিটেড

৪৩৭ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২১ | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।